দূর নয় বেশী দূর ঐ সাজানো সাজানো
বকুল বনের ধারে
ঐ বাঁধানো ঘাটের পাড়ে ।
যেথা অবহেলা সয়ে সয়ে
কিছু ফুল শুকানো শুকানো হয়ে
পড়ে পড়ে আছে তার কিছু দূরে
ঘাটের চাতাল ছাড়িয়ে
ওখানে আমার মাতাল হৃদয়
সেদিন গিয়েছে হারিয়ে ।।
যাক যা গেছে তা যাক...


শুক-সারিরা সেখানে কুজনে কুজনে
দুজনে গাহিয়া যেত
ওই নদীটি বহিয়া যেত ।
বন হরিণী ত্বরিত চকিত চরণে
চমক লাগায়ে দিয়ে
তার চেয়ে ভাল চোখ দুটি দেখে
যেখানে যেত সে দাঁড়িয়ে
সেখানে আমার করুণ হৃদয়
সেদিন গিয়েছে হারিয়ে ।।
যাক যা গেছে তা যাক...


মোর মানসী কলসি কাঁকেতে লইয়া
ওখানে দাঁড়াতো এসে
মুখে মধুর মধুর হেসে ।।
তার তনুর দ্বিরথে ডুবিয়া মরিতে
নদীও উতলা হতো
তার ঢেউয়ে ঢেউয়ে আরো দুটি ঢেউ
যেখানে দিত সে বাড়িয়ে
সেখানে আমার উতল হৃদয়
সেদিন গিয়েছে হারিয়ে ।।
যাক যা গেছে তা যাক...


মোর দিবস রজনী হায় গো সজনী
জাগিয়া জাগিয়া যেতো
তবু স্বপ্ন যে মনে হতো ।
সেই মগন স্বপন সহসা কখনো
ভাঙ্গিয়া ভাঙ্গিয়া গেল ।
এই পথ দিয়ে বধূ বেশে সে যে
যেদিন গেল সে হারিয়ে,
সেদিন আমার সজল হৃদয়
দু’পায় গিয়েছে মাড়িয়ে ।।
যাক যা গেছে তা যাক...
যাক যা গেছে তা যাক।